Main Menu

বিএনপি প্রার্থী শ্যামলের বাসা বাড়ি-গাড়িতে হামলা, ভাংচুর, ৩ তলা বাড়িতে আগুন, গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত এক, আহত ১০

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ও পুলিশসহ কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছে। নিহত ইসরাইল (১৯), রাজঘর গ্রামের সায়েদুল ইসলামের পুত্র। সে পেশায় রাজমিস্ত্রি। সকালে সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের রাজঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও মহাজোট প্রার্থী র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী রাজঘর ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে আওয়ামীলীগ-বিএনপির মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে স্থানীয়রা তার গাড়িতে হামলা চালিয়ে গাড়ির পেছনের কাঁচা ভেঙ্গে ফেলে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ লাটিপেটা ও ৩০ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করে। এতে ইসরাইলসহ চারজন গুলিবিদ্ধ হয়। হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে।

রাজঘর সরকারি প্রাথকিম বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা সত্যরঞ্জন রায় জানান, পৌনে ১১টার দিকে মহাজোট প্রার্থী এ আসনে আসার পরপর দুর্বৃত্তরা তাঁর গাড়িতে হামলা চালায়। এ আসনে ছয়টি কক্ষের মধ্যে দুটি থেকে দুটি ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। ১৩টি বই শেষ হয়েছিল। তবে পৌনে ১১টা থেকেই ভোট গ্রহন বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, সোয়া ১১টায় পুনিয়াউটে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামলের কর্মীদের সাথে ছাত্রলীগ কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ কর্মীরা ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর বাড়িতে হামলা চালায়। অর্ধশত ককটেল নিক্ষেপ করে। বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। বাড়ির সামনে রাখা ২ টি মাইক্রোবাস আগুনে পুড়িয়ে দেয়। হামলাকারীরা বেশকিছু ককটেল নিক্ষেপ করে। ১৫টি ককটেল অবিষ্ফোরিত ককটেল বাড়ির বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

অন্যদিকে, সদর উপজেলার জগৎসার গ্রামে ও মজলিশপুর আনন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ ৮ জন আহত হয়েছে। সকালে শহরের নিয়াজ মোহাম্মদ স্কুল ভোট কেন্দ্রে ৮/১০টি ককটেল বিষ্ফোরনের ঘটনা ঘটে। এদিকে সকালে ১০টার মধ্যে বেশ কিছু কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অধিকাংশ কেন্দ্রের ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয় বলে জানা যায়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares