Main Menu

ফেসইবুক ভিত্তিক সংগঠন বাউনবাইরার কতার প্রবীণদের জন্য ঈদি-২, প্রজেক্ট স্বাবলম্বী অনুষ্ঠান

+100%-

“বাবা আমার আর আত ফাতুন লাগত না, আমি অহন নিজের রুজি নিজেই করতে ফারুম, সংসারও চালাইতে ফারুম”

কান্না জড়িত কন্ঠে এই ভাবেই বলছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার নয়নপুর গ্রামের শামসু মিয়া। তাঁর হাতে রিক্সার চাবি তোলে দেয়ার সময় এ কথা বলেন। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় শহরের ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে ফেইসবুক ভিত্তিক সংগঠন বাউনবাইরার কত সংগঠনের প্রবীণদের জন্য ঈদি-২, প্রজেক্ট স্বাবলম্বী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশকে উন্নয়নে এসমস্ত সামাজিক সংগঠনকে এগিয়ে আসতে হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাংলাদেশের মধ্যে অন্যতম এসমস্ত সামাজিক কাজে।

 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মো: মিজানুর রহমান বলেন, পুরো বাংলাদেশে এখন ব্রাহ্মণবাড়িয়া মডেল হিসেবে দাড়িঁয়েছে অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে। আজকের এ সহযোগিতাই প্রমাণ বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আলোকিত মানুষ হওয়ার এক নতুন পথ উন্মোচিত হচ্ছে এখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। তিনি আরো বলেন এই সমাজকে এগিয়ে নিতে হলে সত্যিকারের মানুষ হতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, প্রেসক্লাব সভাপতি আ খ ম রশীদুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের চেয়ারম্যান, মো: আউয়াল আল কবীর। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রবীণদের জন্য ঈদি-২, প্রজেক্ট স্বাবলম্বীর আহয়বায়ক, সৈয়দ রাজীব, স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রবীণদের জন্য ঈদি-২, প্রজেক্ট স্বাবলম্বীর সমন্বয়ক এড. সাদ্দাম হোসেন খান মিশুক, স্বাবলম্বী প্রজেক্ট ও সংগঠনের কার্যক্রম নিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রবীণদের জন্য ঈদি-২, প্রজেক্ট স্বাবলম্বীর সমন্বয়ক, ডা. মাহবুবুর রহমান এমিল ও তুনাজ্জিনা হক।

ভাগ্যবিড়ম্বিত, দিশেহারা মোট ৮টি অসহায় পরিবারের মধ্যে ২টি রিক্সা একটি নয়নপুরের শামসু মিয়াকে অন্যটি উত্তর শেরপুরের ফরিদ মিয়াকে, ১টি ভ্যান ভাদুঘরের আব্দুস সালাম ও কাজীপাড়ার তাপসী বনিক, কাউতলির মাহমুদা বেগম, নাসিনগর, নূরপুরের সৈয়দা রেহানা খাতুন, শান্তা আক্তার, পাইকপাড়ার সাজেদা বেগম প্রত্যেককে একটি করে ৫টি সেলাই মেশিন দেয়া হয়। এবং ২৫০ জন প্রবীণ পুরুষ মহিলাদের মধ্যে ঈদি পোষাক বিতরণ করা হয় যার মধ্যে মহিলাদের জন্য শাড়ী ও পুরুষদের জন্য লুঙ্গি ও পাঞ্জাবী প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানের অনুষ্ঠান সমন্বয়কগণ বলে প্রজেক্ট সাবলম্বীকে আরো এগিয়ে নিতে তারা দৃঢ় ভাবে কাজ করবে এবং ভবিষ্যতে তা আরো বেশী মানুষকে কিভাবে সহায়তা করা তার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন। তারা আরো জানিয়েছেন এ সংগঠনের সদস্য সংখ্যা এখন ২৮ হাজার ছাড়িয়েছে। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংগঠন সদস্য আব্দুল বাছির দুলাল।

অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতা করেণ অনুষ্ঠান সমন্বয়ক রাফি খান, আরিফুল ইসলাম, জুবায়ের হায়দার রিয়েল, আমির হোসেন, মোঃ সাইফুল হক সুজন, সদস্য মুনাজ্জিনা হক, আবসানা ও সৃজনসহ আরো প্রায় অর্ধশত সদস্য।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares