Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ শুরু

প্রোটিনের ব্যবহার বাড়াতে না পারলে জাতি উন্নত হবে না –অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শামছুল হক

+100%-

ষ্টাফ রিপোর্টার : ‘বাড়াবো প্রাণিজ আমিষ গড়বো দেশ স্বাস্থ্য মেধা সমৃদ্ধির বাংলাদেশ” শ্লোগানে সারা দেশের মতো ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের উদ্যোগে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ২০১৮ শুরু হয়েছে। এর আওতায় বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভার মাধ্যমে ২২ জানুয়ারি হতে আগামী ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত স্থানীয় ইন্ডাষ্ট্রিয়াল স্কুলস্থ শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে ২২টি স্টল নিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৪ দিনব্যাপী প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলা।
গতকাল ২২ জানুয়ারি সোমবার সকালে এ উপলক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ ছামছুল হক এর নেতৃত্বে লোকনাথ দীঘির পাড় হতে প্রাণিসম্পদ খামারী ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সমন্বিত একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলায় সমবেত হয়। ইন্ডাষ্ট্রিয়াল স্কুলস্থ শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ গণেশ চন্দ্র মন্ডল এর সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় ৪ দিনব্যাপী প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ শামছুল হক। ভেটেরিনারী সার্জন ডাঃ মোঃ নুরে আলম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) মোঃ আবু সাইদ, সাবেক সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব আবু হোরায়রাহ, এনজিও প্রতিনিধি এস এম শাহিন। নির্ধারিত প্রতিপাদ্য বিষয়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আবু সাইদ, প্রাণিসম্পদ খামারী মোঃ এমদাদুল বারী, রিকন ফার্মা লিমিটেড এর এমডি ডক্টর মোঃ মিজানুর রহমান প্রমুখ।

৪ দিনব্যাপি প্রদর্শনীর উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ ছামছুল হক বলেন, মানবদেহের পুষ্টি রক্ষায় প্রাণিজ আমিষ ডিম, খাঁটি দুধ ও মাংস তথা প্রোটিনের কোন বিকল্প নেই। যেমন প্রোটিন যুক্ত খাবার খেতে হবে, তেমনি পরিবেশ সম্মত জায়গায় বসবাস করতে হবে। সবাই মিলে সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে হবে। তিনি বলেন, খামারীদের সমস্যা সমাধানের জন্য প্রাণিসম্পদ বিভাগের মাধ্যমে আমরা সরকারের সহযোগিতায় কাজ করবো। দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে আপনারা প্রাণিসম্পদ বিভাগের সেবাগুলো খামারীদের মধ্যে ছড়িয়ে দিন। প্রোটিনের ব্যবহার বাড়াতে না পারলে জাতি উন্নত হবে না। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়া হবে না। তিনি আরও বলেন, খামারীরা বাড়ি এবং খামারে হাঁস মুরগী গবাদী পশু পালন করে আসছেন। এগুলো মানবদেহের পুষ্টি সহ প্রাণিজ আমিষ পুরণের পাশাপাশি প্রযুক্তির উন্নয়নে কাজ করছে। আপনাদের এই বিভাগটিকে পশু সম্পদ হতে প্রাণিসম্পদে পরিবর্তন বর্তমান সরকারের একটি সাফল্য।

উদ্বোধনের পর অতিথিবৃন্দ প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলার ২২টি আকর্ষণীয় ষ্টল পরিদর্শন করেন। এগুলো প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে এবং মঞ্চে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares