Main Menu

গণশুনানি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ

জলবায়ু অর্থায়ন ও প্রকল্প বাস্তবায়নে চাই স্বচ্ছতা, সততা, জবাবদিহিতা

+100%-

ব্রাাহ্মণবাড়িয়া, ২৩ আগস্ট ২০১৭ঃ জলবায়ু অর্থায়ন ও প্রকল্প বাস্তবায়নে চাই স্বচ্ছতা, সততা, জবাবদিহিতা এবং ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণ – এ প্রত্যাশার আলোকে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ব্রাহ্মনবাড়ীয়া’র উদ্যোগে২৩ আগস্ট ২০১৭বুধবার বিকাল ৪টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ভাদুঘর বাজারে সংশ্লিষ্ট বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে গণশুনানি’র আয়োজন করা হয়। সনাক’র সভাপতি জনাব জেসমিন খানমের সভাপতিত্বে ও সনাক সদস্য জনাব মোঃ আরজু এর সঞ্চালনায় ‘গণশুনানি’ তে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকৌশলী মো: সাইফুল্লাহ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিত্ত্ব।

গণশুনানিতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ প্রকল্প বিষয়ক সরাসরি বিভিন্ন তথ্য প্রদান করেন এবং জনগণের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন ও পরামর্শ গ্রহণ করেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকৌশলী মো: সাইফুল্লাহ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন যে ‘জনগণ আমাদের কাছে তো কোন ভাত চায়নি বরং চেয়েছে এলাকার উন্নয়ন এবং স্বচ্ছতার সাথে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা। আমরা অঙ্গিকার করছি জনগনকে সাথে নিয়ে এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাব।’

স্থানীয় জনগণের পক্ষ থেকে আক্তার হোসেন, ইকবাল হোসেন, এস কে তারেক, মোঃ রমজান, নিজাম উদ্দিন, সুমন চন্দ্র সাহা, এতি এম সোলাইমান, মোঃ মানিক, আবু সিদ্দিক, ইকবাল হাসান প্রমুখ পাউবো কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চান।

পাউবো কর্তৃপক্ষ তাদের বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার মধ্যে উক্ত কার্যক্রম বাস্তবায়নে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সনাকের জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন বিষয়ক উপকমিটির আহ্বায়ক জনাব আব্দুন নূর।

পাউবো কর্তৃপক্ষ সনাক টিআইবি’র জবাবদিহিতামূলক এ ধারাকে অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান। গণশুনানি অনুষ্ঠানের পাশাপাশি জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন নিশ্চিত করার আহ্বানে সনাক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইয়েস গ্রুপের সদস্যরা স্থানীয় মানুষের কাছে ভাদুঘর বাজার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ প্রকল্প বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য সম্বলিত ভাঁজপত্র বিতরণ করা হয়। মোট ১৫০ জন নারী ও ২০০ জন পুরুষ উক্ত গণশুনানি অনুষ্ঠানে যোগ দেয়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares