Main Menu

গনপূর্ত অফিসে ঠিকাদার লাঞ্চিত করল চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের ক্যামেরা পার্সন ও সাংবাদিককে, থানায় জিডি

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গনপূর্ত বিভাগের অফিসে সারাক্ষণই কতিপয় ঠিকাদার ঘুর ঘুর করে। তারা অফিসের কাজ বাগিয়ে নিতে সারাক্ষন ফন্দি ফিকির করে। কতিপয় অসাধু কর্মকর্তার ঈন্ধনে বেপরোয়া ঠিকাদাররা অফিসকে ইচ্ছামতই ব্যবহার করে। এতে গনপূর্ত অফিসের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। এসব ঠিকাদার গনপূর্ত অফিসে ভীতি সঞ্চার করে রেখেছেন। বাহিরের কোন লোক নানা প্রয়োজনে অফিসে প্রবেশ করলেই প্রতিবন্ধকতার মধ্যে পড়েন।

এমনি এক ঠিকাদারের কর্তৃক প্রতিবন্ধকতার সম্মূখীন ও লাঞ্ছিত হয়েছেন বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের স্টাফ রিপোর্টার ও ক্যামেরাপার্সন। এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় সাধারন ডায়েরী হয়েছে।

জানা যায়, গনপূর্তের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্ণীতি নিয়ে রিপোর্ট করার জন্য চিত্র গ্রহন করতে যায় চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের ক্যামেরাপার্সন প্রকাশ দাস। মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় নির্বাহী প্রকৌশলী কবির হোসেন এর স্বাক্ষাৎকার গ্রহন শেষে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট একজনের স্বাক্ষাৎকার নেয়ার সময় ঠিকাদার আব্দুল হান্নান প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। তিনি তেড়ে এসে বলেন, গনপূর্ত নিয়ে রিপোর্ট করা যাবে না। এ সময় অশোভন আচরন করে ক্যামেরা ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। তার স্যামসং জে-৭ মডেলের মোবাইল ভাংচুর করে ছিনিয়ে নেয়। তাৎক্ষনিক ভাবে নির্বাহী প্রকৌশলী কবির হোসেন অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিয়ে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করে।
অভিযোগ রয়েছে কতিপয় দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তার মদদেই ঠিকাদার হান্নান সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

সাংবাদিকদের উপর ঠিকাদার লেলিয়ে দেয়া হয়েছে, এমন প্রশ্ন উত্থাপনে নির্বাহী প্রকৌশলী তা অস্বীকার করেন।

রাতে প্রকাশ দাস বাদী হয়ে ব্রাহ্মনবাড়িয়া সদর থানায় একটি জিডি করেছেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নবীর হোসেন জানান, জিডির তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশ তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। ঘটনাটি জেলা পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares