Main Menu

অন্নদা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও রামকানাই স্কুলের “আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া”র পুনর্মিলনী উদযাপিত

+100%-

গত ২৪ নভেম্বর ২০১৭ রোজ শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সঙ্গিতাঙ্গন মঞ্চে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও রামকানাই হাই একাডেমি বিদ্যালয়ের ১৯৯৬, ১৯৯৭ ও ১৯৯৮ সনের এসএসসি পরীক্ষার্থী ব্যাচের সকল বন্ধুদের নিয়ে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সম্মানীয় পুলিশ সুপার যিনি বর্তমানে অতিরিক্ত ডিআইজি হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন জনাব মিজানুর রহমান পিপিএম (বার)।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা খেলাঘর আসর সভাপতি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জনাব ডা. আবু সাঈদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রামকানাই হাই একাডেমি বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জনাব মো. জালাল উদ্দিন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জনাব মো. মোস্তফা কামাল ও অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জনাব মো. মনসুর আলী।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদস্য জনাব আবু কাউছার।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন আমার কর্মজীবনে আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রায় তিন বছর হয়েছে। জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে নানান রকম সামাজিক কাজে আমি সম্পৃক্ত আছি। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের এই তিনটি পুরাতন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় আমি অভিভূত হয়েছি। তোমাদের যে চিন্তা ভাবনা নিয়ে তোমরা একত্রিত হয়েছো আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি তোমরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে। আর এই অগ্রণী ভূমিকাই একদিন দেশের উন্নয়নে অগ্রগতি হবে।

স্বাগত বক্তব্যে আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংগঠনের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক নির্জয় হাসান সোহেল বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য শহরের তিনটি প্রধান উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৬, ১৯৯৭ ও ১৯৯৮ সনের এসএসসি পরীক্ষার্থী ব্যাচের প্রায় ১৮০০ শিক্ষার্থী বন্ধুদের একত্রিত করে আমরা আর্তমানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই। আমাদের বন্ধুদের মাঝে যারা অসহায় তাদের পাশে আমরা দাঁড়াবো। আরে এ লক্ষ নিয়েই আজকে আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৬ সনের মেধাবী শিক্ষার্থী যিনি পরবর্তী সময়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে গণিত বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স পাশ করেছেন প্রিয় বন্ধু আশুতোষ চন্দ্র দাসকে পরিবেশবান্ধব ২টি রিকশা উপহার দিচ্ছি। প্রিয় বন্ধু প্রিয়তোষ চন্দ্র দাসের স্মৃতি বিবরণ করতেই বক্তা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন এবং সকল বন্ধুরাই এক আবেগঘন পরিবেশ সৃষ্টি করেন।

আলোচনা শেষে প্রধান অতিথি বন্ধু প্রিয়তোষের হাতে দুটি রিকশা তুলে দেন এবং প্রতিবন্ধী রাজন মিয়াকে একটি হুইল চেয়ার প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংগঠনের সদস্য সাংবাদিক মীর মোহাম্মদ শাহীন, সাংবাদিক উজ্জল চক্রবর্তী, সৈয়দ তৈমুর, আমজাদ হোসেন রনি, রেজওয়ানুল হক মনি প্রমূখ।

আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পক্ষ থেকে প্রিয় বন্ধু প্রবাসী আসাদ উল্লাহ শিকদার (আশা)কে শুভেচ্ছা স্বারক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠান শেষ মুহুর্তে আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংগঠনের তিনজন বন্ধু ডেন্টিস্ট ডা. সারোয়ার আমরা বন্ধু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল বন্ধুদের ও তার পরিবারের সদস্যদের কন্সালটেশন ফি ফ্রি করে দেন।

বন্ধু আবু কাউছার হলিল্যাব হসপিটালের সকল পরীক্ষায় ৫০% ছাড়ের ঘোষণা দেন এবং সাংবাদিক বন্ধু মীর মোহাম্মদ শাহীন তিতাস টিকেট ফ্রি করে দেন।

অনুষ্ঠান সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য যাদের অবদান ভুলবার নয় তারা হলেন বন্ধু শাহীন সিকান্দার, আলহাজ্জ আমির হোসেন, দানা মিয়া, রুহুল ইসলাম, আশা শিকদার, মারুফ তিশান, সাইফ উদ্দিন আহমেদ ঝুমুর, অপূর্ব পাল, গোলাপ মিয়া, আলমগীর হোসেন, বখতিয়ার, জুনাইদ রাশেদ বাবু, কমরেডসহ সকল বন্ধুরা।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক ও বাচিক শিল্পী মনির হোসেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares