Main Menu

খালেদা জিয়ার মামলায় যে কারণে লর্ড কার্লাইলকে উপদেষ্টা নিয়োগ করা হলো

+100%-

বিবিসি বাংলা:: বাংলাদেশের অন্যতম বিরোধী দল বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলায় আইনগত পরামর্শ দেয়ার জন্য ব্রিটেনের সেরা আইনজীবীদের একজন লর্ড কার্লাইলকে নিযুক্ত করেছে।

ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার মামলায় আইনগত পরামর্শ দেয়ার জন্য লর্ড কার্লাইলকে অনুরোধ করা হলে তিনি সম্মতি জানিয়েছেন।

পাশাপাশি এসব মামলার বিচার কার্যক্রম আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের মানদণ্ড মেনে চলা হচ্ছে কি না, সেদিকেও তিনি লক্ষ্য রাখবেন বলে বিএনপি মহাসচিব জানিয়েছেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বিবিসিকে জানিয়েছেন, লর্ড কার্লাইলের ভূমিকা হবে মূলত একজন আইনি পরামর্শকের।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপক্ষ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আনা মামলাগুলো যেভাবে পরিচালনা করছে, এসব মামলার ব্যাপারে আদালতে বিচারিক রীতিনীতি মেনে চলা হচ্ছে কিনা, তিনি সে বিষয়েও পরামর্শ দেবেন।

লর্ড অ্যালেক্স কার্লাইলের খ্যাতি বড় বড় কিছু মামলায় তার সাফল্যের জন্য।

এর মধ্যে একটি ছিল প্রিন্সেস ডায়ানার মৃত্যুর পর তার ব্যক্তিগত বাটলার পল বারেলের বিরুদ্ধে মামলা।

এতে অভিযোগ করা হয়েছিল যে তিনি রাজকীয় সম্পত্তি থেকে কিছু জিনিসপত্র চুরি করেছেন।

লর্ড কার্লাইল পল বারেলের পক্ষে সেই মামলায় সফলভাবে লড়েছিলেন।

বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্ট ২০১৬ সালের ৮ই মার্চ জামায়াত নেতা মীর কাশিম আলীর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রাখার পর লর্ড কার্লইল বাংলাদেশ সরকারের কাছে একটি চিঠি লিখেছিলেন।

এতে তিনি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের নিরপেক্ষতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এবং ঐ আদালতের জন্য আন্তর্জাতিক সহায়তার সুপারিশ করেন।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ জানান, লর্ড কার্লাইলকে নিয়োগের পেছনে আরেকটি কারণ হলো এসব মামলার আন্তর্জাতিক দিকটির দিকে বিশেষজ্ঞ হিসেবে নজর রাখা।

ভারত, পাকিস্তান, কিংবা আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে এই ধরনের মামলায় কীভাবে আইন প্রয়োগ করা হয়, ন্যায়বিচার কীভাবে নিশ্চিত করা হয়, লর্ড কার্লাইল সেই বিষয়েও পরামর্শ দেবেন বলে মি. আহমেদ বলেন।

তবে লর্ড কার্লাইলে নিযুক্তি খালেদা জিয়ার আইনি উপদেষ্টাদের প্রতি অনাস্থার বহিঃপ্রকাশ কী না, বিবিসির এই প্রশ্নকে মওদুদ আহমেদ সরাসরি নাকচ করে দেন।

তিনি বলেন, দেশের সেরা আইনজীবীরাই চেয়ারপার্সনের মামলাটি পরিচালনা করছেন।

তাদের সাথে লর্ড কার্লাইলের যোগদান মামলায় বিবাদী পক্ষের হাতকে আরও শক্তিশালী করবে বলে তিনি ব্যাখ্যা করেন।

লর্ড কার্লাইল দীর্ঘ ২৮ বছর খণ্ডকালীন বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছেন জানিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে খালেদা জিয়ার মামলা ও সাজার বিষয়ে তুলে ধরতেও লর্ড কার্লাইল কাজ করবেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares